সুন্দরের চেয়েও সুন্দর পৃথিবীর দশটি আকর্ষনীয় স্থান!

নয়নাভিরাম স্থান

পৃথিবীর সৌন্দর্যকে কী কল্পনার সীমানায় আবদ্ধ করা যায়! ভাবা যায় পৃথিবীটা আসলেই কতো রূপে রূপসী! হয়তো ভাবা যায় হয় তো ভাবা যায় না । আবার ভাবলেও অনেকগুন বাড়িয়ে ভাবা যায় অথবা কমিয়ে ভাবা যায়। কিন্তু বাস্তবিক অর্থে অপার সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি আমাদের পৃথিবী। সৌন্দর্যের খেলায় কিছু কিছু স্থান এতোটাই অপরূপ হয়ে উঠেছে যা আমাদের কল্পনার মাত্রাকেও ছাড়িয়ে যায়। বাস্তবে এদের উপস্থিতি আছে বলে বিশ্বাস করা যায় না। এমনই পৃথিবীর দশটি আকর্ষনীয় স্থান এর সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিবো।

1. মাউন্ট রৌরমা, ভেনিজুয়েলা 

 

মাউন্ট রৌরমা, ভেনিজুয়েলা
মাউন্ট রৌরমা, ভেনিজুয়েলা

 

চারপাশে ভাসমান সাদা মেঘের খেলা এর মাঝখানে কিছু বিশালাকার পর্বত আর সেই পর্বতের সুউচ্চ শৃঙ্গে বসে অবলোকন করছেন প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য। কল্পনার জগৎ থেকে যেন আর বের হতে ইচ্ছে করছে না। আপনার কল্পনার সাথে মিলিয়ে এই ছবিটি দেখে নিশ্চয়ই মনে হচ্ছে আকাশে ভাসমান একটি পাহাড় যা শুধু সিনেমা বা কল্পনাতেই ভাবা যায়। আশ্চর্যজনক হলেও সত্য এই প্রাকৃতিক আশ্চর্যটি সম্পূর্ণ বাস্তব এবং সম্পূর্ণ অনুপ্রেরণাদায়ক। এটি দক্ষিণ আমেরিকার টেপুই প্লেটোর পাকরামি শৃঙ্গের সর্বোচ্চ রৌরমা মাউন্ট। যা আপনার কল্পনার সৌন্দর্যকেও হার মানায়। পর্বতটি ভেনেজুয়েলা, ব্রাজিল এবং গায়ানা এর তিনটি সীমান্ত পয়েন্টের অন্তর্ভুক্ত। মাউন্ট রোরামাইয়া ভেনেজুয়েলার 30000 কিলোমিটার ২ কানাইমা ন্যাশনাল পার্কের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে গিয়ানা শিল্ড পর্বতমালার সর্বোচ্চ শিখর। এই পর্বতমালাকে পৃথিবীর প্রাচীনতম ভূতাত্ত্বিক গঠনগুলির কিছু বলে মনে করা হয়।

2. টানেল অফ লাভ – ক্লেভেন, ইউক্রেন

 

টানেল অফ লাভ - ক্লেভেন, ইউক্রেন
টানেল অফ লাভ – ক্লেভেন, ইউক্রেন

 

প্রেম আর প্রকৃতির মিলন মেলা হলো টানেল অফ লাভ। আশ্চর্যের বিষয় হলো স্থানটি ক্লেভেনের ছোট ইউক্রেনীয় শহরের একটি অব্যবহৃত রেলওয়ে ট্র্যাক। এটি কিউব থেকে প্রায় 350 কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সময়ের স্রোতে ভেসে ধীরে ধীরে টানেল অফ লাভ দম্পতিদের জন্য একটি রোমান্টিক জান্নাতে পরিণত হয়েছে। দ্য টানেল অফ লাভ নামে স্থানীয়ভাবে পরিচিত ট্র্যাকটি দম্পতিদের জন্য ক্রমবর্ধমান সাধারণ স্পট হয়ে উঠছে, বিশেষ করে বসন্তের সময়, যখন ট্র্যাক বরাবর গাছের একটি বিশাল ছাদ যা তোরণের মতো গঠন করতে উভয় পাশে বৃদ্ধি পায়। এই তোরণ তিন কিলোমিটার পর্যন্ত প্রসারিত হয়। টানেলটি সবুজের সমারোহে মেতে উঠে। প্রিয় সঙ্গীর সঙ্গে একাকী কিছু রোমান্টিক মুহুর্ত কাটানোর ইচ্ছা পোষণকারী দম্পতিরা প্রায়ই ছুটে আসে এখানে । প্রকৃতির সাথে ভালোবাসা মিশে যেন স্থানটির সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে বহুগুণ। ভাবছেন প্রিয় মানুষটির সঙ্গে একটু মুহূর্ত সেখানে কাটাতে পারলে মন্দ হতো না।

3. সালার ডি ইউউনি, বলিভিয়া

 

সালার ডি ইউউনি, বলিভিয়া
সালার ডি ইউউনি, বলিভিয়া

 

লবনের শক্ত আচ্ছাদন ও যে প্রকৃতির একটি আশ্চর্য সৃষ্টি হতে পারে সেটা সালার ডি ইউউনি সম্পর্কে না জানলে আপনি কোনদিন জানতে পারতেন না। বিশ্বের সবচেয়ে উত্তেজনাপূর্ণ দর্শনীয় স্থানের মধ্যে সালার ডি ইউউনি অন্যতম। এটি পৃথিবীর সর্ববৃহৎ লবণ সমতল যার আয়তন 10,58২ বর্গ কিলোমিটার। এটি দক্ষিণে বলিভিয়ায় পটাসি এবং অরুরো বিভাগে অবস্থিত, এন্ডিসের তীরে অবস্থিত, এবং সাড়ে 65 হাজার মিটার উচ্চতার সমুদ্র পৃষ্ঠের উপরে অবস্থিত। বিভিন্ন প্রাগৈতিহাসিক যুগের হ্রদের রূপান্তরের ফলশ্রুতি হিসেবে গঠিত হয় সালার ডি ইউউনি। এটি লবনের কয়েক মিটার আচ্ছাদন দ্বারা আবৃত যা Salar এর সমগ্র অঞ্চলে গড়ে এক মিটার উচ্চতার বৈচিত্রময় একটি অসাধারণ সমতলতা সৃষ্টি করেছে। লবনাক্ত এই শক্ত বিশাল সমুদ্রটি অধিকাংশ লিথিয়াম সমৃদ্ধ।

 4. মাউন্ট গ্রিনেল – হিমবাহ জাতীয় উদ্যান, মন্টানা

 

মাউন্ট গ্রিনেল - হিমবাহ জাতীয় উদ্যান, মন্টানা
মাউন্ট গ্রিনেল – হিমবাহ জাতীয় উদ্যান, মন্টানা


মাউন্ট গোল্ড ও মাউন্ট উইলবারের কাছাকাছি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্টানার গ্লাসিয়ার ন্যাশনাল পার্কের হৃদয়ে অবস্থিত একটি শিখর মাউন্ট গ্রিনেল। এটি জর্জ বার্ড গ্রিনেলের নামে নামকরণ করা হয়েছে। জর্জ বার্ড গ্রিনেল একজন আমেরিকান সংরক্ষণবাদী এবং অনুসন্ধানকারী। প্রায় 152 একর জায়গা জুড়ে এই হিমবাহ উদ্যানটি অবস্থিত। SwiftCurrent লেক উপর অনেক গ্লাসার হোটেল থেকে গ্রিনেল পয়েন্ট “মিথ্যা শিখর” দেখা যাবে।

5. স্টোন ফরেস্ট – ইউনান, চীন

 

স্টোন ফরেস্ট - ইউনান, চীন
স্টোন ফরেস্ট – ইউনান, চীন

 

স্টোন ফরেস্ট বা শিলিন শিলিন ইউ অটোনমাস কাউন্টির ইউনান প্রদেশের চীনের জনগণের শৃঙ্খলাকৃতির একটি উল্লেখযোগ্য শাখা, যা প্রাদেশিক রাজধানী কুনমিং থেকে প্রায় 120 কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।প্রথমে দেখে মনে হবে গাছের উপর বরফ জমে এমন দৃশ্যের অবতারণা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে লম্বা পাথরগুলি স্ট্যালগেমিটির পদ্ধতিতে ভূগর্ভস্থ ভূমি থেকে বেরিয়ে আসে যার ফলে অনেকগুলি প্রত্নতাত্ত্বিক গাছের মতো দেখতে পাওয়া যায়। এরা এমন ভাবে সজ্জিত যে গাছের তৈরি বনের মধ্যে যেমন ভ্রান্তির সৃষ্টি হয় ঠিক তেমনিভাবে এই পাথরের তৈরি বনেও ভ্রান্তির সৃষ্টি হয়।

6. ঝিয়াংঝি, চীন

 

 ঝিয়াংঝি, চীন
Image Source: ratetea.com

 

 

রঙ তুলিতে আঁকা রঙিন এক পাহাড়ের দৃশ্য মনে হচ্ছে, তাই না? মনে হচ্ছে কোন এক চিত্রশিল্পী তার মনের সব রঙ মিশিয়ে বুরুশের আচড়ে এঁকে রূপ দিয়েছে এমন দৃশ্যের।  অবিশ্বাস্য হলেও সত্য এই অসাধারণ ছবিটি চীনের গানসু প্রদেশের ঝাংয়েয়ের লিনঝে কাউন্টিতে, নেজিয়াইং শহরে অবস্থিত নানানাইজি গ্রামে ডেনসিয়া ল্যান্ডফরমের প্রকৃত দৃশ্য দেখায়। এই দৃশ্যের রূপকার কোন চিত্রশিল্পী নয়, প্রকৃতি স্বয়ং নিজেই।

7. লেক রেটবা – সেনেগাল

 

লেক রেটবা – সেনেগাল
Image Source: swapnoghuri.com

 

গোলাপি রঙের লেক ! এটাও সম্ভব ! দেখে দৈত্যকার স্ট্রবেরি মিল্কশেকের মত লাগছে। এটি লেক Retba বা ল্যাক রোজ। এই লেকটি ডেকার এর উত্তর পূর্ব, সেনেগাল এর ক্যাপ ভার্ট উপদ্বীপের উত্তর দিকে অবস্থিত। এটি লেকের পানির গোলাপী রঙের জন্য এমন নামকরণ করা হয়। পানির এ রঙের জন্য অদ্ভুত কোন কিছু দায়ী নয়। Dunaliella salina নামক এক ধরনের শেওলার জন্য পানির বর্ন এমন হয়। গোলাপি রঙেরপুরোপুরি আবির্ভাব ঘটে শুষ্ক মৌসুমে। শুষ্ক মৌসুমেই যেন লেখাটি তার নাভের প্রকৃও স্বার্থ কত খোঁজে পায়।

8. টিউলিপ ক্ষেত্র – লিসেস, হল্যান্ড

 

টিউলিপ ক্ষেত্র – লিসেস, হল্যান্ড
Image Source: olympus-tours.com

 

ফুল পছন্দ করে না এমন মানুষ পাওয়া দায়। একটু ভাবুন তো বিশাল জায়গা জুড়ে অসংখ্য ফুলের প্রদর্শনী হচ্ছে তবে ফেই জায়গার দৃশ্য কতোটা মনোরম! এই চমৎকার এই প্রদর্শনী হয়ে থাকে Keukenhof গার্ডেনে। অবিস্মরণীয় মৌসুমী প্রদর্শনীটি সাত মিলিয়ন টিউলিপ, ড্যাফোডিল, হ্যাকাথ, বসন্ত বাল্ব এবং চমত্কার গাছ দ্বারা তৈরি করা হয়। কেওকেনহফ হল্যান্ডের শীর্ষ আকর্ষণগুলির মধ্যে একটি। আমস্টারডামের দক্ষিণে ফুল-ক্রমবর্ধমান এলাকা যেখানে লক্ষ লক্ষ টিউলিপস উদ্দীপনা আসে এবং ক্ষেত্রগুলি সোনা, ফুক্সিয়া, লাল রঙের এবং বেগুনি সঙ্গে ডোরাকাটা হয়। লিসের সবচেয়ে জনপ্রিয় আকর্ষণ কেওকনহফ। শুধুমাত্র বসন্তের সময় খোলা থাকে তখন টিউলিপ ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় সম্পূর্ণ কেওকনহফ। এছাড়াও প্রতিটি বসন্তে লিস এর প্রধান রাস্তায় বুলেইনসিকিট ব্লোইমেনকোর্স নামে একটি ফুল প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়।

9. ল্যাপল্যান্ড, ফিনল্যান্ড

 

ল্যাপল্যান্ড, ফিনল্যান্ড
Image Sourec: misadventuresmag.com

 

শুভ্রসাদায় তুষারাচ্ছন্ন চারপাশ ! এমন একটি পার্ক কি কল্পনা করা যায় ! এমনই একটি নয়নাভিরাম পার্ক ফিনল্যান্ডের দক্ষিন ল্যাপল্যান্ডে অবস্থিত। দক্ষিণ লাপল্যান্ডের রিশিটুনটুরি ন্যাশনাল পার্ক তার মুকুট তুষার গাছের জন্য বিখ্যাত।ল্যাপল্যান্ড ফিনল্যান্ডের বৃহত্তম এবং উত্তরপশ্চিমতম অঞ্চল। এটি দক্ষিণের উত্তর ওস্ট্রোবোথনিয়া অঞ্চলের সীমানা। এটি বোথনিয়া উপসাগরীয় অঞ্চল, সুইডেনের নরব্রোটেন কাউন্টি, নরওয়েের ফিনমার কাউন্টি এবং ট্রমস কাউন্টি এবং রাশিয়ায় মরুম্যান্সকোব্লাষ্টের সীমানা। আপনি শীতকালে গোধূলি দেখতে চান?! উত্তরাঞ্চলের আলো? উপভোগ করতে চান গ্রীষ্মের রাতহীন রাতের অভিজ্ঞতা? তাহলে ল্যাপল্যান্ড হবে আপনার কল্পনায় বসবাস করা বাস্তবে দৃশ্যমান স্থান। এমন দৃশ্যে অনন্য প্রকৃতির সঙ্গে আপনি এক অসীম ভালোবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়বেন।

10. সকোট্রা, ইয়েমেন

 

সকোট্রা, ইয়েমেন
Image Source: kalerkantho.com

 

ভারত মহাসাগরে চারটি দ্বীপের একটি ছোট দ্বীপপুঞ্জ সকোট্রা। এটি ইয়েমেন প্রজাতন্ত্রের অংশ। আরব সাগরের জীব বৈচিত্র্যের রত্ন হবে এই দ্বীপপুঞ্জকে বিবেচনা করা হয়। সকোট্রা গাছের সর্বাধিক আকর্ষণীয় বিষয় হচ্ছে এক ড্রাগনের রক্ত বৃক্ষ (ড্রেকা সিনাবাড়ি)।গাছট দেখতে অদ্ভুত-সুদর্শন, ছাতা-আকৃতির। এর লাল রসকে প্রাচীনদের ড্রাগন রক্ত ​​বলে মনে করা হয়। বর্তমানে এই রস পেইন্ট এবং বার্নিশ হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ড্রাগনের রক্ত বৃক্ষ সকোট্রার আইকন প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যগুলির একটি। দ্বীপের কেন্দ্রস্থলে ডিসকাম প্লেটোর উপরে এই গাছগুলি উচ্চতা বৃদ্ধি পায়।

রহস্যময় এই পৃথিবীটাকে আমাদের জানার এখনো অনেক বাকি। পৃথিবীকে জানার আগ্রহ আগামীতে এমন আরো নয়নাভিরাম দৃশ্য আবিষ্কারের পথ খুলে দিবে। আশা করছি এই দশটি স্থান সম্পর্কে জেনে আপনার ভালো লেগেছে। বেড়েছে জ্ঞানের পরিধি।

 

1,777 total views, 4 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: